সালমান এফ রহমান জানালেন টিকার নিবন্ধনের ন্যুনতম বয়স কমানো হবে

সালমান এফ রহমান জানালেন টিকার নিবন্ধনের ন্যুনতম বয়স কমানো হবে

নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) অতিমারি মোকাবেলায় গণটিকার পরিধি আরও বিস্তৃত করবে সরকার। এর অংশ হিসেবে টিকার নিবন্ধনের ন্যুনতম বয়স কমানো হবে। তাতে ৩৫ বছরের কম বয়সীরাও করোনার টিকা নিতে পারবেন।

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান আজ মঙ্গলবার (১৪৩ জুলাই) এই তথ্য জানিয়েছেন। ইকনোমিক রিপোর্টার্স ফোরাম (ইআরএফ) আয়োজিত চামড়া শিল্প সংক্রান্ত এক ওয়েবিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখার সময় তিনি এই তথ্য জানান। তবে টিকার জন্য বয়স কমিয়ে কত করা হবে তা তিনি উল্লেখ করেননি।

সালমান এফ রহমান বলেন, সরকার করোনা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বিগ্ন। দেশে সংক্রমণ বৃদ্ধির পাশাপাশি মৃত্যু হারও বাড়ছে। এই অবস্থা মোকাবেলায় টিকাদান কর্মসূচিকে জোরদার করতে হবে।

তিনি বলেন, বেশ কিছুদিন টিকার সংকট ছিল। সেটি কেটে গেছে। বিপুল পরিমাণ টিকা সরকারের হাতে আসছে। তাই টিকা নেওয়ার বয়সসীমা কমিয়ে আরও বেশি সংখ্যক মানুষকে এর আওতায় আনতে হবে।

উল্লেখ, বর্তমানে করোনার টিকার জন্য নাম নিবন্ধনে বয়স হতে হয় ন্যুনতম ৩৫ বছর। তবে চিকিৎসাকর্মী ও সংবাদকর্মীসহ অধিক ঝুঁকিতেও থাকা মানুষের জন্য এই বয়সসীমা ছাড় আছে।

দেশে গণটিকা শুরুর সময় নিবন্ধনের ন্যুনতম বয়স ছিল ৫৫ বছর। পরে এটিকে কমিয়ে ৪৪ বছর করা হয়। গত ৫ জুলাই বয়সসীমা আরও কমিয়ে ৩৫ বছর নির্ধারণ করা হয়।

দেশে গত ৭ ফেব্রুয়ারি গণটিকা দেওয়া শুরু হয়। ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে কেনা অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা দিয়ে এই কর্মসূচি শুরু হয়। কিন্তু কোম্পানিটি প্রতিশ্রুতি অনুসারে টিকার সরবরাহ অব্যাহত না রাখায় মে মাসে টিকার জন্য নতুন করে নিবন্ধন বন্ধ করে দেওয়া হয়। প্রায় ২ মাস পর গত ৭ জুলাই ফের নিবন্ধন শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে সরকারের কাছে চীনের সিনোফার্ম থেকে কেনা টিকা আসতে শুরু করেছে। এছাড়া কোভ্যাক্স কর্মসূচির আওতায় মডার্ন ও ফাইজারের কিছু টিকা উপহার হিসেবে পাওয়া গেছে। বর্তমানে সরকারের কাছে প্রায় ৫৮ লাখ টিকা আছে বলে জানা গেছে। আগামী মাসের মধ্যে সিনো ফার্মেরবিপুল পরিমাণ টিকা আসবে। এছাড়া সেপ্টেম্বরে সেরাম ইনস্টিটিউটও বাংলাদেশে টিকা রপ্তানি শুরু করতে পারে বলে আভাস পাওয়া গেছে।

Share This Post