সাতক্ষীরা পৌর দীঘিতে সাতার কাটতে নেমে নকলনবিশ নিখোঁজ, তিন ঘণ্টা পর মরদেহ উদ্ধার

সাতক্ষীরা পৌর দীঘিতে সাতার কাটতে নেমে নকলনবিশ নিখোঁজ, তিন ঘণ্টা পর মরদেহ উদ্ধার

এমএ জামান (সাতক্ষীরা ) : সাতক্ষীরা পৌর দীঘিতে সাতার কাটতে গিয়ে নিখোঁজ হওয়ার প্রায় তিন ঘণ্টা পর সাব রেজিস্ট্রি অফিসের নকল নবিশ মহিব্লুলাহ তরুর (৩৫) মরদেহ উদ্ধার করছে ফায়ার সার্ভিস। রোববার (২২ আগস্ট) রাত সাড়ে ৮টার দিকে নিখোঁজ হন তিনি। মহিবুললাহ তরু সাতক্ষীরা সদর উপজেলার শাল্যে গ্রামের মৃত দ্বীন আলী সরদারের ছেলে।

তার পারিবারিক সূত্র জানায়, মহিবুললাহ তরুসহ তার কয়েকজন সহকর্মী প্রতিদিন সন্ধ্যার পর হাটতে বের হন এবং শারীরিক ব্যয়াম শেষে পৌর দীঘিতে গোসল করে বাড়িতে ফেরেন। প্রতিদিনের ন্যায় আজও (রোববার) তিনিসহ তার অপর এক সহকর্মী পৌর দীঘিতে গোসল করতে নেমে সাতরে দীঘির মাঝখানে যান। এসময় হঠাৎ করে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে তার সহকর্মী তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়ে দীঘির ঘাটে ফিরে আসেন এবং পরবর্তীতে আবার গিয়ে তার আর পাননি। এসময় ঘটনাটি জানাজানি হলে পৌর দীঘি ঘিরে হাজার হাজার মানুষের ভীড় জমে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে আসেন। তবে, ফায়ার সার্ভিসের সাতক্ষীরা স্টেশনে ডুবুরী দলের সদস্যরা না থাকায় খবর দেওয়া হয় খুলনা স্টেশনে। সেখান থেকে রাত ৯টা ৩৫ মিনিটে সাতক্ষীরায় পৌঁছান ডুবুরী দল। এর পর তারা নিখোঁজ মহিবুললাহ তরুর সন্ধানে নামেন এবং প্রায় সোয়া এক ঘণ্টা চেষ্টার পর মহিবুললাহ তরুর মৃতদেহ উদ্ধার করতে সক্ষম হন।

পরিবারের সদস্যরা আরও জানান, মহিবুললাহ তরুর হার্টের সমস্যা ছিল। হয়তো মাঝ দীঘিতে গিয়ে তিনি হার্টের সমস্যা অনুভব করে আর ফিরতে পারেননি। খুলনা ফায়ার সার্ভিসের ওয়ারহাউজ ইন্সপেক্টর শেখ রাজীব তার মরদেহ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।##

Share This Post