শ্রীমঙ্গল উপজেলায় এক রাতে ৮ টি দোকান চুরি ব্যাবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক

শ্রীমঙ্গল উপজেলায় এক রাতে ৮ টি দোকান চুরি ব্যাবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক

এস কে দাশ সুমন (শ্রীমঙ্গল) : মৌলভীবাজার জেলার পর্যটন নগরী শ্রীমঙ্গল উপজেলা শহরের বিভিন্ন এলাকায় এক রাতে ৮টি দোকানে চুরির ঘটনা ঘটে।

মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) রাতে উপজেলা শহরের ব্যাবসায়ীরা যখন নিজ নিজ ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান গুছিয়ে তালা বন্ধ করে বাড়ি ফিরেন তখন দিবাগত রাতে শহরের বিভিন্ন এলাকার দোকান ও ব্যববসা প্রতিষ্ঠানে চুরির ঘটনা ঘটে। উক্ত ঘটনায় শ্রীমঙ্গল শহরের ব্যাবসায়ীদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে এবং একই রাতে অসংখ্য ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান চুরির ঘটনায় ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে।

শহরের চুরি যাওয়া ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীরা জানান, শহরের উকিল বাড়ী সড়কের ওয়াটার লিলি ফুড স্টোর, সোনামিয়া রোডের দেবনাথ মেডিকেল হল, রুপসপুর দূর্গাবাড়ী সড়কের প্রীতি এন্ড প্রিয়া ভেরাইটিজ স্টোর, আর কে মিশন রোডের সি লেডিস টেইলার্স, কলেজ রোডের ছাদ ভ্যারাইটিজ স্টোর, পূরবী স্টোর, আয়ুস ডিজিটাল স্টুডিও ও সুহাসিনী ফার্মেসীতে এই চুরি সংঘটিত হয়।

ক্ষতিগ্রস্ত ব্যাবসায়ীরা জানান, ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানে চুরির ঘটনায় প্রায় আড়াই লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন ব্যাবসায়ীরা।

এ ঘটনায় পুলিশ ও ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দ ক্ষতিগ্রস্থ দোকানগুলো পরিদর্শন করেছেন। শ্রীমঙ্গল কলেজ রোডের ছাদ ভ্যারাইটিজ স্টোর এর মালিক মো. তুহিন চৌধুরী বলেন প্রতিদিনের মতো মঙ্গলবার রাত ৯ টায় দোকান বন্ধ করে বাসায় যাই। বুধবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে আমার পাশের একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে চুরি হয়েছে এমন সংবাদ পেয়ে দোকান খুলে দেখি আমার দোকানও চুরি হয়েছে। চোরেরা ক্যাশ থেকে নগদ টাকা ও একটি মোবাইল ফোন চুরি করে নিয়ে গেছে। রুপসপুর দূর্গাবাড়ী এলাকার প্রীতি এন্ড প্রিয়া ভেরাইটিজ স্টোরের সত্ত্বাধিকারী লিটন দেব বলেন, এই দোকানের উপর আমাদের সংসার নির্ভরশীল। চোরেরা দোকানের সার্টার ভেঙ্গে ক্যাশ থেকে নগদ টাকাসহ প্রায় ৩০ হাজার টাকার মালামাল নিয়ে গেছে।

শ্রীমঙ্গল ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক হাজী মো. কামাল হোসেন বলেন, শ্রীমঙ্গল একটি শান্ত শহর, হঠাৎ করে এই শান্ত শহর কেন অশান্ত হয়ে উঠলো, ঘুমিয়ে থাকা দুষ্কৃতিকারীরা কিভাবে আবার জেগে উঠলো?’ এমন প্রশ্ন রাখেন। তিনি চুরির ঘটনার নিন্দা জানিয়ে দুষ্কৃতিকারীদের দ্রত চিহ্নিত করতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

শ্রীমঙ্গল থানার ওসি (তদন্ত) নয়ন কারকুন বলেন, এ ঘটনায় বিভিন্ন সড়কের সিসি টিভি ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়েছে। প্রাপ্ত ফুটেজ বিশ্লেষণ করা হচ্ছে। খুব শিঘ্রই দুষ্কৃতিকারীদের সনাক্ত ও গ্রেফতার করার হবে বলে তিনি জানান।

Share This Post