শ্রীমঙ্গলে ছাদের পলেস্তারা খসে আহত ২

শ্রীমঙ্গলে ছাদের পলেস্তারা খসে আহত ২

এস কে দাশ সুমন (শ্রীমঙ্গল) :   মৌলভীবাজারের  শ্রীমঙ্গল  শহরের  নতুন  বাজার  এলাকায়  ছাদের  পলেস্তারা  খসে  মাথায়  আঘাত  লেগে  দুই  ব্যাবসায়ী  আহত  হয়েছেন। শনিবার  (২৮ আগস্ট)  সকাল  সাড়ে  ৮ টার  দিকে  এই  ঘটনা  ঘটে  বলে  জানায়  প্রত্যক্ষদর্শীরা।
জানাযায়, শহরের  নতুন  বাজার  এলাকায়  শ্রীমঙ্গল  পৌরসভার  অন্তর্ভুক্ত  মাছ  বাজারে  প্রতিদিনের  মতো  ব্যবসা  নিয়ে  ব্যস্ত  ছিলেন  এখানকার  ব্যাবসায়ীরা  সেই  সাথে  লকডাউন  না  থাকায়  বাজারে  ক্রেতা  সাধারণের  উপস্থিতি  ছিলো  সরগরম। হটাত  সকাল  সাড়ে  ৮  টার  দিকে  বিকট  শব্দে  বাজারের  এক  কোনে  ছাদের  পলেস্তারা  খসে  পড়ে  আহত  হন  দুই  ব্যাবসায়ী। এসময়  বাজার  এলাকায়  আতঙ্ক  ছড়িয়ে  পড়ে  অনেকেই  দ্রুত  স্থান  ত্যাগ  করেন। পরে  বাজারের  অনান‍্য  ব্যাবসায়ীদের  সহায়তায়  আহতদের  উদ্ধার  করে  শ্রীমঙ্গল  স্বাস্থ্য  কমপ্লেক্সে  চিকিৎসা  দেওয়া  হয়।
আহতরা  হলেন-  মিনার  মিয়া  (৭০)  ও  ফাহিম  মিয়া  (১৮), তারা  নতুন  বাজারের  মৎস্য  ব্যবসায়ী।
উক্ত  ঘটনায়  মাছ  বাজারের  ব্যবসায়ীরা  জানান, সকাল  বেলা  হটাত  করেই পলেস্তারা  খসে  পড়ে এসময়  ছাদের  নিচে  থাকা  ফাহিম  মিয়া  ও  মিনার  মিয়া  রক্তাক্তভাবে  আহত  হন।  তাদের  হাত  ও  মাথা  আঘাত  প্রাপ্ত  হয়। পরে  তাদের  শ্রীমঙ্গল  উপজেলা  স্বাস্থ্য  কমপ্লেক্সে  চিকিৎসার  জন্য  পাঠানো  হয়। সেখানে  প্রাথমিক  চিকিৎসা  নিয়ে  তারা  বাড়ি  ফিরে  গেছেন।
ব্যবসায়ীরা  আরো  জানান,  দীর্ঘদিনের  পুরাতন  জরাজীর্ণ  ভবনে  আমরা  ঝুঁকিপূর্ণ  অবস্থায়  ব্যাবসা পরিচালনা  করি, এবং  ইতিমধ্যেই  বেশ  কয়েকবার  এখানে  পলেস্তারা  খসে  লোকজন  ও  ব্যাবসায়ীরা আহত  হয়েছেন, আমরা  শ্রীমঙ্গল  পৌরসভায়   দায়িত্বপ্রাপ্ত  কর্মকর্তাদের  জানালে  লোকজন  এসে  কোন  রকমে  মেরামত  কাজ  করে  চলে  যান।
শ্রীমঙ্গল  নতুন  বাজার  মৎস্য  ব্যবসায়ী  সমিতির  সভাপতি  ছনর  মিয়া  বলেন,  পৌরসভার  লোকজন  এখানে  এসে  দেখে  গেছেন।  তারা  এখানে  দ্রুত  সংস্কার  কাজ  করার  কথা  বলে  গেছেন।
শ্রীমঙ্গল  পৌরসভার  সহকারী  প্রকৌশলী  জহির  আহমেদ  বলেন,  এটি  অনেক  পুরাতন  ভবন।  আমরা  ভবনটি  পরীক্ষা  করে  দেখেছি।  ঝুঁকিপূর্ণ  জায়গাগুলো  সংস্কার  কাজ  করা  হবে।  তিনি  বলেন,  অর্থ  বরাদ্দ  না  থাকায়  নতুন  করে  ভবন  নির্মাণ  করা  সম্ভব  হচ্ছে  না।  বরাদ্দ  পেলে  এখানে  নতুন  করে  ভবন  তৈরি  করা  হবে।

Share This Post