শাটডাউনের খবর শুনেই রাজধানী ছাড়ার হিড়িক

শাটডাউনের খবর শুনেই রাজধানী ছাড়ার হিড়িক


মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে ফেরিতে যাত্রী ও যানবাহনের চাপ বেড়েছে। সোমবার থেকে কঠোর লকডাউনের কথা শুনে আজ শনিবার (২৬ জুন) সকাল থেকে যাত্রীদের ভিড় বেড়ে গেছে ঘাটে। সড়কে চেকপোস্ট বসিয়েও মানুষকে আটকানো যাচ্ছে না। বিভিন্নভাবে মানুষ ঘাটে আসছে।

দূরপাল্লার যান চলাচল বন্ধ থাকায় ছোট ছোট যানবাহনে করে ভেঙে ভেঙে ও হেঁটে যাত্রীরা ফেরিঘাটে আসছে। মানুষ গাদাগাদি করে ফেরিতে উঠছে। স্বাস্থ্যবিধি ও শারীরিক দূরত্ব কোনটাই মানতে দেখা যাচ্ছে না যাত্রীদের মাঝে।

সকাল থেকে এই নৌরুটের ফেরিগুলোতে ঢাকা ও দক্ষিণাঞ্চল উভয়মুখী অসংখ্য যাত্রীকে পার হতে দেখা যায়। বেলা বাড়ার সাথে সাথে মানুষের ভিড়ও বৃদ্ধি পাচ্ছে। পণ্যবাহী ও জরুরি যানবাহন পারাপারের সময় যাত্রীরা উঠে যাচ্ছে ফেরিতে। ছোট যানবাহন ফেরি দিয়ে পার হচ্ছে।

এছাড়া বাংলাবাজার ঘাট থেকেও ফেরিতে করে শিমুলিয়াঘাটে আসছেন অনেক যাত্রী। এই নৌরুটে চলাচলকারী ১৬টি ফেরির মধ্যে ১৬টি ফেরি চলাচল করছে। ৩নং ফেরিঘাটের পন্টুনের সংযোগ সড়কের মধ্যে জলমগ্ন হয়েছে। এতে যাত্রীদের দুর্ভোগ আরও বেড়েছে।

বিআইডব্লিউটিসি’র ম্যানেজার ফয়সাল হোসেন বলেন, ‘সবক’টি ফেরি চলাচল করছে। লকডাউনের নিয়ম অনুযায়ী, শুধু পণ্যবাহী ও জরুরি যান পারাপারের কথা থাকলেও লঞ্চ ও স্পিডবোর্ট থাকায় যাত্রীদের চাপ বেশি।’

Share This Post