শাকিব-নিপুণ প্যানেলে প্রার্থী হতে পারেন যেসব তারকা

শাকিব-নিপুণ প্যানেলে প্রার্থী হতে পারেন যেসব তারকা

বিনোদন ডেস্ক
বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির বর্তমান কমিটির মেয়াদ শেষের পথে। এরই মধ্যে নতুন করে নির্বাচনী বাতাস বইতে শুরু করেছে। তবে সেই বাতাস আর গত বছরের মতো অনুকূলে থাকছে না বর্তমান কমিটির নেতৃত্বে থাকা মিশা-জায়েদ প্যানেলে। এবার ক্ষমতা ধরে রাখতে তাদের লড়াই করতে হবে শক্ত আরেকটি প্যানেলের সঙ্গে। বেশকিছু সূত্র জানিয়েছে, আসন্ন শিল্পী সমিতির নির্বাচনে এবার সভাপতি পদে প্রার্থী হচ্ছেন ঢালিউড কিং খান খ্যাত শাকিব। তার সঙ্গে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দেখা যাবে অভিনেত্রী নিপুণকে। যদিও গণমাধ্যমে শাকিব দাবি করেছেন, তিনি নির্বাচন করবেন না। অন্যদিকে সেক্রেটারি পদের প্রার্থী হিসেবে আলোচনায় থাকা নিপুণের দাবি, তিনি নির্বাচন সংক্রান্ত বিষয়ে এ মুহূর্তে কিছু বলতে চান না।
এদিকে এফডিসিতে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির আসন্ন নির্বাচন নিয়ে আলোচনা-গুঞ্জন। শিল্পীদের পাশাপাশি এ নির্বাচন নিয়ে আগ্রহী পরিচালক ও প্রযোজক সমিতির সদস্যরাও। জানা গেছে, টানা দুই মেয়াদে শিল্পী সমিতির নেতৃত্ব দিয়ে সেক্রেটারি হিসেবে বেশ শক্ত অবস্থান তৈরি করেছেন জায়েদ খান। বর্তমান সভাপতি মিশা সওদারগকে তিনি আগামী নির্বাচনে পাচ্ছেন না। তার ভাবনায় সভাপাতি হিসেবে আছেন মনোয়ার হোসেন ডিপজলসহ আরও কয়েকজন। শাকিব-নিপুণ প্যানেলে এবার দেখা যাবে হেভিওয়েট প্রার্থী। একটি তারকাবহুল প্যানেল গড়ার দিকে মনোযোগ দিচ্ছেন তারা। এখানে সহ-সভাপতি হিসেবে দেখা যেতে পারে শিল্পীদের প্রিয় নেতা অমিত হাসানকে। এ পদে আরেকজন প্রার্থী হিসেবে আলোচনায় আছেন নতুন প্রজন্মের একজন তারকা। কমিটির খুব গুরুত্বপূর্ণ পদ জয়েন্ট সেক্রেটারি হিসেবে বেশ কয়েকটি নাম উঠে আসছে। তবে জনপ্রিয় ফাইট ডিরেক্টর শেখ আরমানের ওপরই ভরসা করতে চাইছে তারকায় ঠাসা এ প্যানেলটি।
প্যানেলে গুরুত্বপূর্ণ একটি পদে প্রার্থী হবেন চিত্রনায়ক ইমন। ক্ষমতায় থাকা বর্তমান কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করা এ নায়ককে তার পদের জন্যই লড়াই করার টিকিট দেবে শাকিব-নিপুণ প্যানেল। এ প্যানেলের হয়ে গুরুত্বপূর্ণ দুটি পদের জন্য লড়াইয়ের মাঠ কাঁপাতে পারেন চিত্রনায়ক সাইমন ও নিরব। তবে নিরব, ইমন ও সাইমন; তিন নায়কের কেউই বিষয়টি নিয়ে মুখ খোলেন না। জাগো নিউজকে তারা জানান, করোনার কারণে অনেক কাজ আটকে আছে। শিগগির সেগুলো নিয়ে ব্যস্ত হতে চান তারা। আপাতত নির্বাচন নিয়ে কোনো ভাবনা নেই।
এদিকে প্যানেলটিতে কার্যনির্বাহী সদস্য পদের জন্য আলোচনার তালিকায় আছেন চিত্রনায়ক ফেরদৌস, নায়িকা মৌসুমী ও পূর্ণিমা। রিয়াজের ব্যাপারেও গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। তাকে দেখা যেতে পারে সহ-সভাপতি কিংবা কার্যনির্বাহী সদস্য পদে। নায়িকা রোজিনাসহ ক’জন সিনিয়র তারকা শিল্পীকেও দেখা যাবে এ প্যানেলে। এরই মধ্যে প্যানেল গোছানোয় মন দিয়েছেন তারকারা। তারা কয়েক দফা মিটিংয়েও অংশ নিয়েছেন। আগামী মাসেই চূড়ান্ত প্যানেলের তালিকা প্রকাশ হবে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।
এদিকে টানা দুই মেয়াদ ক্ষমতায় থাকা মিশা-জায়েদ প্যানেল নানা কারণে রয়েছে সমালোচনার মুখে। সর্বশেষ চিত্রনায়িকা পরীমনি ইস্যুতে এ কমিটি দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে গিয়ে বিতর্কের জন্ম দিয়েছে, যা শিল্পীদের মনে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি করেছে। এরই মধ্যে সভাপতি পদের প্রার্থী নিয়ে জায়েদকে বেশ চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হবে। মিশা সওদাগর এবার নির্বাচন করবেন না বলে শোনা যাচ্ছে। ডিপজলও আনুষ্ঠানিকভাবে গণমাধ্যমে জানিয়েছেন, তিনি কোনো রকম নির্বাচনেই আর অংশ নেবেন না। এমন টালমাটাল অবস্থায় তারকাবহুল শাকিব-নিপুণ প্যানেলকে সামলাতে পারবেন জায়েদ খান? সেটাই এখন শিল্পী সমিতিকে ঘিরে লাখ টাকার প্রশ্ন!

Share This Post