মোংলা-রামপাল মহাসড়ক নির্মাণে ৪৬৮ কোটি টাকার প্রকল্প

মোংলা-রামপাল মহাসড়ক নির্মাণে ৪৬৮ কোটি টাকার প্রকল্প

আলী আজীম (মোংলা, বাগেরহাট):

বাগেরহাট জেলার সঙ্গে রামপাল ও মোংলা উপজেলায় মানসম্মত সড়ক নেটওয়ার্ক স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ। এজন্য ৪৬৭ কোটি ৭৫ লাখ টাকার প্রকল্প অনুমোদন পেয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটিতে (একনেক)। এই অর্থে সড়কের মান উন্নয়ন, আরামদায়ক, সময় ও ব্যয়সাশ্রয়ী সড়ক নেটওয়ার্ক প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব হবে মনে করছে বিভাগটি।

পরিকল্পনা কমিশনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, ‘বাগেরহাট-রামপাল-মোংলা জেলা মহাসড়ক যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নয়ন শীর্ষক প্রকল্পটি গত ১০ আগস্ট একনেক সভায় অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের এই প্রকল্পটি বাগেরহাট জেলার সদর, রামপাল ও মোংলা উপজেলায় বাস্তবায়ন করা হবে।

চলতি বছরের জুলাই থেকে জুন ২০২৪ সালে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে সড়ক ও জনপথ অধিদফতর। চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরের এডিপিতে বরাদ্দ বিহীন অননুমোদিত নতুন প্রকল্প তালিকায় প্রকল্পটি অন্তর্ভুক্ত আছে।

সড়ক ও জনপথ অধিদফতর সূত্র জানায়, এই প্রকল্পের মাধ্যমে ৯ দশমিক ৬৫ হেক্টর ভূমি অধিগ্রহণ, ৬ দশমিক ৮৪ লাখ ঘনমিটার সড়ক বাঁধে মাটির কাজ, ৪ দশমিক ৭৮ কিলোমিটার নতুন সড়ক নির্মাণ, ২১ দশমিক ৫২ কিলোমিটার বিদ্যমান সড়ক প্রশস্তকরণ, ২১ দশমিক ৫২ কিলোমিটার বিদ্যমান পেভমেন্ট মজবুতিকরণ, ৪ দশমিক ১১ কিলোমিটার বিদ্যমান পেভমেন্ট মজবুতিকরণ, ৩১ দশমিক ২৩ কিলোমিটার সার্ফেসিং (ডিবিএ ডেন্স বিটুমিনাস সার্ফেসিং), দুই কিলোমিটার রিজিড পেভমেন্ট নির্মাণ, আটটি পিসিগার্ডার সেতুনির্মাণ, ২১টি আরসিসি বক্স কালভার্ট নির্মাণ, চারহাজার মিটার কনক্রিট ইউ ড্রেন নির্মাণ, ছয়টি বাস বে নির্মাণ, ১২ হাজার মিটার আরসিসিপ্রিকাস্ট প্যালাসাইডিং, এক হাজার ৮৬০ মিটার রিটেইনিং ওয়াল/টো-ওয়ালনির্মাণ, দুটি ইন্টারসেকশন উন্নয়নএবং একটি ফেরীঘাট স্থাপন করা হবে।

পরিকল্পনাকমিশনজানায়, প্রকল্পটিঅষ্টমপঞ্চবার্ষিকপরিকল্পনায়সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের লক্ষ্যমাত্রার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ। অষ্টমপঞ্চবার্ষিকপরিকল্পনায় ১২ হাজার ৭০০ কিলোমিটারআঞ্চলিক ও জেলামহাসড়কউন্নয়ন ও পুনর্বাসনের লক্ষ্যমাত্রারয়েছে। প্রস্তাবিতপ্রকল্পেরআওতায় মোট ৩৩ দশমিক ৮২৮ কিলোমিটার সড়ক উন্নয়নের প্রস্তাব করা হয়েছে, যা উপযুক্ত লক্ষ্যমাত্রার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ।

পরিকল্পনা কমিশনের ভৌত অবকাঠামো বিভাগের সদস্য মামুন-আল-রশিদ বলেন, প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হলে বাগেরহাট জেলা সদরের সঙ্গে রামপাল ও মোংলা উপজেলার নিরবচ্ছিন্ন ও নিরাপদ যোগাযোগব্যবস্থা স্থাপন হবে। এছাড়া প্রকল্প এলাকার আর্থসামাজিক অবস্থার উন্নয়নের পাশাপাশি কৃষিপণ্য সহজে গ্রাম থেকে শহরে আনা হবে।

সড়ক বিভাগ, বাগেরহাটের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ ফরিদ উদ্দিন বলেন, বাগেরহাট বাসীর জন্য বাগেরহাট-রামপাল-মোংলা সড়কটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বিগত বছর গুলোতে সড়কটি আমরা কয়েকবার সংস্কার করেছি। যানবাহনের আধিক্যতা ও প্রয়োজনীয়তা বিবেচনায় সড়কটির মানউন্নয়ন ও প্রশস্তকরণের প্রয়োজনীয়তা ছিল। যার ফলে আমরা বাগেরহাট-রামপাল-মোংলা জেলা মহাসড়ক যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নয়ন প্রস্তাবনা মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছিলাম। সেই প্রস্তাব একনেকে অনুমোদন হয়েছে। আশা করি আমরা নির্দিষ্ট সময়ে কাজ শুরুএবং শেষ করতে পারব। জনগণ এই প্রকল্পের মাধ্যমে উপকৃত হবেন।

Share This Post