মুকসুদপুরে ব্যতিক্রমধর্মী বিট পুলিশিং

মুকসুদপুরে ব্যতিক্রমধর্মী বিট পুলিশিং

সরদার মজিবুর রহমান (গোপালগঞ্জ ) : 
গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে ব্যতিক্রমধর্মী বিট পুলিশিং কার্যক্রম করেছে মুকসুদপুর থানা পুলিশ। শনিবার ( ২৫ সেপ্টেম্বর ) বিকালে মুকসুদপুর থানার আয়োজনে উপজেলার মোচনা ইউনিয়নের নওহাটা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ব্যতিক্রমধর্মী  বিট পুলিশিং কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়েছে। ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হাবিবুর রহমান বিপিএম (বার), পিপিএম (বার)- এর নির্দেশনায়, গোপালগঞ্জের পুলিশ সুপার আয়েশা সিদ্দিকার দিক নির্দেশনায় , মুকসুদপুর থানার ওসি আবু বকর মিয়ার পরিচালনায় করোনাকালিন সময়ে বিভিন্ন মসজিদে সচেতনতা বৃদ্ধিতে জুম্মার নামাজের পূর্বে বিট এরিয়া ভিত্তিক বক্তব্য প্রদান, অপরাধ দমনে বিট পুলিশিং সভার কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। 
তারই ধারাবাহিকতায় উপজেলার মোচনা ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের পলাতক ১২১ জন জিআর ওয়ারেন্ট, সিআর ওয়ারেন্ট, জিআর সাজাপ্রাপ্ত এবং সিআর সাজাপ্রাপ্ত আসামী ধরতে ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্য, গ্রাম পুলিশ, আওয়ামী লীগের নের্তৃবৃন্দ এবং সর্বসাধারনের সাথে আলোচনা সভা, আসামীদের তালিকা বিতরণ এবং মাইকিং করা হয়েছে। এসব পলতাক আসামীদের ধরতে সকলের কাছে সহযোগিতা কামনা করা হয়েছে। 
এসময় উপস্থিত ছিলেন মুকসুদপুর থানার ওসি আবু বকর মিয়া, ইন্সপেক্টর তদন্ত খন্দকার আমিনুর রহমান, সেকেন্ড অফিসার এস আই গোবিন্দ লাল দে, মোচনা ইউপি চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন, সাংবাদিক সরদার মজিবুর রহমান, উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি হিরু আলী মীর, মোচনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি খন্দকার নাসির, সম্পাদক মিজান মোল্যা, এমদাদ মোল্যা প্রমুখ। 
মুকসুদপুর থানার ওসি আবু বকর মিয়া জানান, মোচনা ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের পলাতক ১২১ জন আসামী ধরতে  প্রকাশ্যে তাদের নাম ঘোষনা করা হয়েছে, ইউপি চেয়ারম্যান এবং ইউপি সদস্যদের হাতে তাদের তালিকা তুলে দেয়া হয়েছে। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে তাদের স্বেচ্ছায় কোর্টে আত্মসমর্পণ করার জন্য অন্যথায় পুলিশের হাতে তুলে দেয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। যদি তারা ধরা না দেয় তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।  ####

Share This Post