মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন হাসিবুর রহমান স্বপন এমপি

মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন হাসিবুর রহমান স্বপন এমপি

শফিক মোহাম্মদ রুমন (সিরাজগঞ্জ) : মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন সিরাজগঞ্জ-৬ ( শাহজাদপুর) আসনের সংসদ সদস্য, শাহজাদপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক শিল্প উপ-মন্ত্রী হাসিবুর রহমান স্বপন।
শুক্রবার (৩ সেপ্টেম্বর) বিকেল তিনটায় শাহজাদপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে দ্বিতীয় এবং সাড়ে তিনটায় শাহজাদপুর মখদুমিয়া জামে মসজিদে তৃতীয় নামাজে জানাযা শেষে চুনিয়াখালি কবরস্থানে তাঁর দাফন সম্পন্ন হয়।
এর আগে শুক্রবার ভোরে তুরস্ক থেকে প্রয়াত হাসিবুর রহমান স্বপনের মরদেহ ঢাকায় এসে পৌঁছে। সকাল সাড়ে ৮টায় ঢাকার গুলশান আজাদ মসজিদে প্রথম নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। জানাযা শেষে রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্পিকার শিরিন শারমীনের পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শেষ শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।
সকাল সাড়ে ১১টার দিকে হেলিকপ্টারযোগে তার মরদেহ পাবনার বেড়া আব্দুল খালেক স্টেডিয়ামে আনা হয়। সেখানে তাঁর কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য শামসুর রহমান টুকু ও বেড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ। সেখান থেকে এ্যাম্বুলেন্সযোগে তাঁর মরদেহ শাহজাদপুর দ্বারিয়াপুর মহল্লার নিজ বাড়ির সামনে স্বজনদের দেখানোর জন্য রাখা হয়।
শেষবারের মতো তাঁকে দেখতে সেখানে ভীড় করেন হাজার হাজার মানুষ। অভিভাবক হারানোর বেদনা বুকে নিয়ে হাজার হাজার নেতাকর্মী এবং স্বজনরা স্তব্ধ নির্বাক হয়ে দেখতে থাকেন প্রিয় নেতাকে। সেখানে চোখের জলে সিক্ত হন শাহজাদপুরের আপামর জনতা। এমনভাবে তারা অভিভাবক হারা হবেন, মেনে নিতে পারেননি কেউই।

দুপুর ২টার দিকে শাহজাদপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সর্বসাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য তাঁর মরদেহ নেয়া হয়। সেখানে সিরাজগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য তানভীর শাকিল জয়, সিরাজগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য হাবিবে মিল্লাত মুন্নার পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এছাড়া জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহাম্মদ, পুলিশ সুপার হাসিবুল আলম, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, সাবেক মন্ত্রী আব্দুল লতিফ বিশ্বাস, জেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের পক্ষ থেকে ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।
জানাযার পূর্বে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এ্যাড. কে এম হোসেন আলী হাসান, সাবেক সংসদ সদস্য চয়ন ইসলাম, যুবলীগের কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য সাজ্জাদ হায়দার লিটন, প্রয়াত হাসিবুর রহমান স্বপনের বড় মেয়ে সম্পা রহমান প্রমূখ।
জানাযা শেষে তাঁর মরদেহ চুনিয়াখালি শাহ মখদুমিয়া মসজিদে নেয়া হলে সেখানে তৃতীয় নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। এর শাহ মখদুমিয়া কবরস্থানে বাবা-মার কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হন হাসিবুর রহমান স্বপন। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে তুরস্কের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার (২ সেপ্টেম্বর) ভোর রাত সোয়া তিনটার দিকে মৃত্যুবরণ করেন হাসিবুর রহমান স্বপন।
১৯৫৬ সালের ১৬ জুন সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুর উপজেলার দ্বারিয়াপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন হাসিবুর রহমান স্বপন। তিনি ৮০ দশকে পরিবহন শ্রমিক সংগঠনের নেতৃত্ব দেন। এরপর শাহজাদপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান পরবর্তীতে পৌরসভা চেয়ারম্যান ও নির্বাচিত হন। ১৯৯৬ সালে সপ্তম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী হিসেবে তৎকালীন সিরাজগঞ্জ-৭ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। পরবর্তীতে ক্ষমতাসীম আওয়ামী লীগ ঐক্যমতের সরকার গঠনের ডাক দিলে তিনি তাতে যোগ দিয়ে শিল্প উপ-মন্ত্রীর দায়িত্ব পান। সে সময় বিএনপি তাকে দল বহিষ্কার করলে তিনি আওয়ামী লীগে যোগ দেন। এরপর ২০১৪ সালের দশম ও ২০১৮ সালের একদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের হিসেবে সিরাজগঞ্জ-৬ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। পাশাপাশি তিনি মৃত্যুর আগ পর্যন্ত উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন।

Share This Post