মাধবপুরে বাড়ছে অটোরিকশা ও টমটম বাড়ছে দুর্ঘটনা

মাধবপুরে বাড়ছে অটোরিকশা ও টমটম বাড়ছে দুর্ঘটনা

রিংকু দেবনাথ (মাধবপুর,হবিগঞ্জ): 
হবিগঞ্জের মাধবপুরে দিন দিন বেপরোয়া হয়ে উঠছে ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা।প্রতিদিনই এইসব রিকসা চলতে দেখা যাচ্ছে মাধবপুর উপজেলা সদরের পৌরসভা এবং ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক সহ বিভিন্ন অলিতে গলিতে।পৌরসভা ছাড়াও উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে একই চিত্র দেখা যাচ্ছে।ব্যাটারি চালিত অটোরিকশাগুলো চলাচলের ফলে বেড়ে চলছে যানযট।দূরপাল্লার যানবাহন নির্বিগ্নে চলাচল করতে পারছে না ফলে প্রতিনিয়তই ঘটছে দুর্ঘটনা।অটোরিকশাগুলোর সংখ্যা বেশি হওয়ায় সাধারণ জনগনের ভোগান্তি বাড়ছে।অনেক অসুস্থ রোগী ও হাসপাতাল পথযাত্রীরা অটোরিকসার এলোমেলো চলাফেরা ও যানযটের কারনে জরুরি সেবা গ্রহনের জন্য এম্বুলেন্স বা অন্য যানবাহনে করে হাসপাতালে যেতে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।অটোরিকশাগুলো যাত্রীদের কাছ থেকেও আদায় করছে বাড়তি ভাড়া।ব্যাটারি চালিত অটোরিকশাগুলো বৈদ্যুতিক চার্জের মাধ্যমে চলে।সংখ্যায় বেশি হওয়ায় ফলে প্রতিনিয়তই বিদ্যুতের চাহিদা বাড়ছে।যার ফলে সমগ্র উপজেলায় নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে রীতিমতো হিমশিম খেতে হচ্ছে মাধবপুর নোয়াপায়া পল্লী বিদুৎ সমিতির।এই ব্যাপারে মাধবপুর উপজেলা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির নোয়াপাড়া জোনাল অফিসের  ডিজিএম মোঃআবুল কাশেম বলেন,অটোরিকশা চার্জের ফলে বিদ্যুতের লোড বাড়ছে।তবে অটোরিকশা চার্জিং নিষিদ্ধকরণের ব্যাপারে সরকারিভাবে আমাদের কাছে কোন নির্দেশনা এখনো আসেনি।এলোপাতারি অটোরিকশা চার্জ করা অবৈধ।তবে বর্তমানে কেউ যদি অটোরিকশা চার্জ করতে চায় তাহলে তাকে আলাদাভাবে চার্জিং পাওয়ার ষ্টেশন করে চার্জ করতে হবে।অটোরিকশার উপদ্রবের ব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলার স্থানীয় বাসিন্দা,শেখ জাহান রনি বলেন,অটোরিকশার সংখ্যা বেশি হওয়ায় ও তাদের বেপরোয়া চলাচলের জন্য প্রতিদিনই দুর্ঘটনা ঘটছে।বাজারের ভীতরে হাটবাজার করার জন্য চলাফেরা করতে কষ্ট হয়।আরেক স্থানীয় বাসিন্দা জানান,এইসব অটোরিকশাগুলোকে একটা নিয়মের ভীতরে নিয়ে আসা দরকার না হলে দুর্ভোগ আরো বাড়বে।মাধবপুর পৌরসভায় অটোরিকশা দ্বারা সৃষ্ট যানযট নিরসনের ব্যাপারে পৌরসভার মেয়র মোঃহাবিবুর রহমান মানিক বলেন,ইতিমধ্যে তাদের বেপরোয়া চলাচল নিয়ন্ত্রণ করার জন্য লাইসেন্সের আওতায় নিয়ে আসার উদ্দোগ নেয়া হয়েছে।এলাকায় মাইকিং করে জানানো হয়েছে।সকল অটোরিকশা ও টমটমগুলোকে দুইটা আলাদা আলাদা সময়ে চলাচলের অনুমতি দেয়া হবে।ফলে যানযট ও দুর্ঘটনা কমবে বলে আশা করি।এইসব অটোরিকসা চালাতে পরিশ্রম কম লাগে বিধায় অনেকেই কৃষি কাজ ছেড়ে দিয়ে চলে আসছেন রিকসা চালাতে।ফলে দেখা দিচ্ছে শ্রমিক সংকট।যানযট নিরসন ও যানবাহনের নিয়ম শৃঙ্খলা রক্ষার ব্যাপারে মাধবপুর থানার ট্রাফিক জোনের ওসি মোঃরমজান আলীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন,হ্যা পৌর শহরসহ অন্যান্য জায়গায় অটোরিকশা ও টমটম চলাচল বেড়েছে।আমরা উপজেলার যানযট নিরসনে কাজ করছি।প্রতিদিনই অটোরিকশা মহাসড়কে চলতে নিষেধ করা হচ্ছে এবংঅবৈধভাবে চলাফেরা করায় অটোরিকশা আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

Share This Post