ভালুকায় শিশু জন্ম নিবন্ধনেও চলছে বৃক্ষরোপণ

ভালুকায় শিশু জন্ম নিবন্ধনেও চলছে বৃক্ষরোপণ


এস,এম জাহাঙ্গীর আলম (ভালুকা,ময়মনসিংহ):
পৃথিবীতে প্রতিটি মানুষই জন্মের পর তার জন্ম দিন স্মৃতির পাতায় স্মরণীয় হয়ে থাকে প্রকৃতির মুক্ত আলো-বাতাসে বেড়ে উঠা সেই মানুষটি যখন বুঝতে পারে তার জন্ম দিন বিশেষ কোন স্মৃতি বহন করছে ভিন্ন আঙ্গীকের উপমা নিয়ে। তবে তার চেয়ে আর,ভাগ্যবান ক”জন হয়।
ভালুকার প্রধান শিল্পনগরী হবিরবাড়ীর নতুন প্রজন্মের শিশুদের জন্ম নিবন্ধনকে ঘিরে তাদের জন্ম দিনটিকে তেমনি স্মৃতিময় করে রাখার ব্যতিক্রমি এক উদ্যোগ গ্রহন করে,প্রতিভাবান তরুণ,ভালুকার সর্বকনিন্ঠ ও নান্দনিক জনপ্রতিনিধি,ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান তোফায়েল আহম্মেদ বাচ্চু স্থানীয়দের দৃষ্টি কেড়েছেন।
শোকাবহ আগষ্টের এই মাসে হবিরবাড়ী ইউনিয়নের সদ্য জন্ম নেয়া সকল শিশুদের জন্ম নিবন্ধন কর্মসুচি পালনে তার ব্যতিক্রমি এই উদ্যোগ,সাধারণ মানুষের মাঝে নীতিবাচক সারা ফেলেছে।
প্রতিদিন সকালে সদ্য জন্ম নেয়া শিশুর বাড়ীতে তিনি ১টি ফলজ ও ১টি বনজ আর মিষ্টি নিয়ে হাজির হন।সুন্দর আগামীর গড়ার ওই কারিগরদের কোলে নিয়ে নতুন ওই অতিথির শুভ আগমন উপলক্ষে পরিবাবের সকলকে মিষ্টি মুখ করিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের জন্ম নিবন্ধন প্রক্রিয়া শেষ করেন।পরে ওই শিশুর নামে বাড়ীর আঙিনায় ২টি গাছের চারা রোপন করে,শিশুদের মা-বাবাদের সন্তানের পাশা-পাশি গাছ দুটিকেউ পরিচর্চা করার অনুরোধ জানান। একদিন আমরা কেউ থাকবোনা উল্লেখ করে তিনি বলেন এই গাছ আপনার সন্তানের অবলম্বন হয়ে দাঁড়াবে,তাকে ছাঁয়া দিবে।
সুন্দর আগামী গড়ার বাস্তবমুখী এমন পদক্ষেপ নতুন প্রজন্মের জন্যে দৃষ্টান্ত বলে মনে করছেন সচেতন মহল ।
এছাড়াও মহামারী করোনা মোকাবেলায় শিল্প এলাকার বিশাল এক জনগোষ্ঠীর কল্যাণে কাজ করে সফলতা অর্জনের পাশা-পাশি তিনি সামাজিক ও মানবিক কাজে অবদান রেখে ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসন কর্তৃক জেলার শ্রেষ্ঠ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের সম্মাননা পদকও অর্জন করেন তিনি।
মুঠোফোনে ভালুকার হবিরবাড়ীর সফল ইউপি চেয়ারম্যানর তোফায়েল আহম্মেদ বাচ্চুর সাথে কথা হলে তিনি জানান,জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে মমতাময়ী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বৃক্ষরোপন কর্মসুচিকে এগিয়ে নেয়ার লক্ষেই এই উদ্যোগ গ্রহন করা হয়। তিনি আরও বলেন বর্তমানে হবিরবাড়ী শিল্প এলাকা হিসেবে গড়ে উঠায় এখানে বিশাল এক জনগোষ্ঠী বসবাস রয়েছে।এতে পরিবেশ তার ভারসাম্য হারাচ্ছে,পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় আমাদের বৃক্ষরোপন অতিবজরুরী।
সেই লক্ষে ০থেকে ৪৫ দিনের মধ্যে নিবন্ধন নিশ্চিত করন ও সচেতনতা তৈরি,শিশু জন্মের খবর পাওয়া পর নবজাতকের জন্য উপহার ২টি ফলজ ও বনজ বৃক্ষের চারা ও মিষ্টি নিয়ে পরিষদের মেম্বার সহ নবজাতকের বাড়ীতে উপস্থিত হয়ে জন্ম তথ্য সংগ্রহ,অনলাইন নিবন্ধন নিশ্চিত কর্মসুচি পালন করা হচ্ছে যা চলমান থাকবে।

Share This Post