বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন মানুষদের জন্য প্রয়োজন সুযোগ সৃষ্টি করা: মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী অফিসার

বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন মানুষদের জন্য প্রয়োজন সুযোগ সৃষ্টি করা: মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী অফিসার

চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার নির্বাহী অফিসার গাজী শরিফুল হাসান বলেন, বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন মানুষদের মানবসম্পদ হিসেবে গড়ে তুলতে হলে প্রয়োজন বিভিন্ন ধরনের সুযোগ-সুবিধার সৃষ্টি করা।

বৃহস্পতিবার বিকেলে ছেংগারচর সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে ফেসবুক অনলাইন সংগঠন “মাতৃছায়া একতা সংঘ” আয়োজিত মতলব উত্তরে প্রতিবন্ধীদের মধ্যে সেলাই মেশিন ও হুইল চেয়ার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য ইউএনও গাজী শরিফুল হাসান এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে ছেংগারচর মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বেনজীর আহমদের সভাপতিত্বে যুগান্তর ও আনন্দ টিভি’র মতলব প্রতিনিধি ফারুক হোসেনের সঞ্চালনায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক শামসুজ্জামান ডলার, প্রভাষক আলামিন পারভেজ, ইসরাফিল খান বাবু, নিসাত জাহান, মাহবুবু আলম লাভলু, মনিরুল ইসলাম মনির, মমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

ইউএনও গাজী শরিফুল হাসান বলেন, বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন মানুষদের চলাফেরার জন্য কোনো সুযোগ-সুবিধা নেই। বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন মানুষকে রাস্তায় চলাচল করার জন্য আরেকজন সহযোগী প্রয়োজন। সেক্ষেত্রে যোগাযোগের হুইল চেয়ার থাকলে নিজের মতে করে বাহিরে চলাফেরা করতে পারবে।

এসব মানুষকে আত্মনির্ভরশীল করে গড়ে তোলা খুবই জরুরি। আর তাদের জন্য সমান সুযোগ তৈরি করতে পারলে সাধারণ মানুষও এর সুফল পাবে।

ইউএনও আরো বলেন, বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন ও অসহায়দেরকে অবজ্ঞা, অবহেলা না করে মানবসম্পদে পরিণত করার জন্য সুযোগ তৈরি করা প্রয়োজন। আজ যারা সেলাই মেশিন ও মোবাইল পেয়েছে তারা আত্মনির্ভরশীল হয়ে উঠবে।

অনুষ্ঠানটির সার্বিক সহযোগীতা ছিলেন মাতৃছায়া একতা সংঘে’র প্রতিষ্ঠাতা ও এডমিন আলামিন ফরাজী, ফজলুল হক, এডমিন আলামিন, নিসাত জাহান, মাহফুজুর রহমান মাহী, শেখ রাব্বানি, হাসিনা আক্তার রুনা, মডারেটর সোহেল দেওয়ান, ছাব্বির রহমান, শিফাত সরকার, মোঃ আনিছ, মোঃ হাবিব, মোঃ সাফায়েত, এনামুল হক, সামিয়া বিন্তি, ফারজানা আক্তার, সজিব হোসেন, সাহাদাত হোসেন জনি, সুলতানা আসিম, মোঃ রফিক।

উল্লেখ্য, অনুষ্ঠানটিতে ৪ জন শারীরিক প্রতিবন্ধীকে হুইল চেয়ার, ৩ জনকে সেলাই মেশিন, তথ্য প্রযুক্তির কাজ শিখে অনলাইনে আয় করে বেকারত্ব দূরীকরনের জন্য শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধী একজনকে একটি মোবাইল ফোন ও ৫শ’ গাছের চারা বিতরণ করা হয়।

(তথ্যসুত্র: রাসেল হোসাইন )

Share This Post