বিএএফএফসি’র নিউ ইংল্যান্ড টি-টোয়েন্টি : কানেকটিকাট সুপার কিংসকে হারিয়ে ভারনন ক্রিকেট ক্লাব চ্যাম্পিয়ন

বিএএফএফসি’র নিউ ইংল্যান্ড টি-টোয়েন্টি : কানেকটিকাট সুপার কিংসকে হারিয়ে ভারনন ক্রিকেট ক্লাব চ্যাম্পিয়ন

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট মানেই চমক আর অন্যরকম আনন্দ, আর সেটা যদি দেশের বাইরে প্রবাসী বাংলাদেশিদের আয়োজনে হয় তাহলে তো কথাই নাই। কর্মব্যস্ত জীবনে সপ্তাহান্তে একটু বিনোদনের পাশাপাশি বন্ধুদের সাথে একত্রে মিলিত হয়ে খেলা দেখার সাথে কুশলাদি বিনিময় আর কয়েক ঘন্টার আড্ডাবাজি যেন অন্যরকম অনুভূতি। যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক থেকে প্রায় ১ শত ২৫ মাইল দূরে কানেকটিকাটে অঙ্গরাজ্যে চলতি বছরের ৩১ জুলাই শুরু হয়েছিলো নিউ ইংল্যান্ড টি-টোয়েন্টি গোল্ডকাপ ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট। প্রায় আড়াই মাসব্যাপী এ টুর্ণামেন্টের সমাপ্তি ঘটেছে গত রবিবার (১৭ অক্টোবর। বাংলাদেশি আমেরিকান ফ্রেন্ডস অ্যান্ড ফ্যামিলি অব কানেকটিকাট (বিএএফএফসি)  আয়োজিত ফাইনাল খেলায় ১৩৮ রানের ব্যবধানের কানেকটিকাট সুপার কিংস (সিটিএসকে)-কে হারিয়ে ভারনন ক্রিকেট ক্লাব(ভিসিসি) চ্যাম্পিয়ন হন। মার্কিন সংবাদমাধ্যম বাংলা প্রেস এ খবর জানিয়েছে।টাউন অব ম্যানচেস্টারের রবার্টসন ইলেমেন্টারি স্কুলের মাঠে তৈরিকৃত নতুন ক্রিকেট মাঠে দুপুর সাড়ে ১২টায় চার দেশীয় জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় ফাইনাল খেলা। বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করেন ব্রিয়ানা বিশ্বাস। পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার খেলোয়াড়গণ ইউটিউব থেকে তাদের স্বদেশীয় জাতীয় বাজিয়ে শোনান। খেলায় বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশি, ভারতীয়, পাকিস্তানি, শ্রীলঙ্কান ও আমেরিকান অতিথিবৃন্দ এবং বাংলাদেশি কমিউনিটির নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত হন দর্শক গ্যালারিতে। ফাইনাল খেলায় অংশ নেওয়া কানেকটিকাট সুপার কিংস (সিটিএসকে) ও ভারনন ক্রিকেট ক্লাব (ভিসিসি)-এর মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের আশা করেছিলো প্রবাসী ক্রিকেটমোদিরা। কিন্তু তাদের সে আশা পূরণ করতে পারেনি কানেকটিকাট সুপার কিংস। টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন ভারনন ক্রিকেট ক্লাব। তারা ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ২০৪ রান অর্জন করেন। তাদের ছুঁড়ে দেওয়া ২০৪ রানের টার্গেট নিয়ে কানেকটিকাট সুপার কিংস অর্জন করেন ১৫ ওভার ৫ বলে ৬৬ রানে অল আউট হন। উদ্বোধনী ম্যাচের মতই রানের রেকর্ড গড়েছেন কানেকটিকাটের ভারনন ক্রিকেট ক্লাব ২০ ওভারে এ খেলায় ১২ ওভারেই ২১৬ করে রেকর্ড করেন (ভিসিসি)। উদ্বোধনী ম্যাচেও ওয়েস্টার্ণ ম্যাসাচুসেটস ক্রিকেট ক্লাবের ছুঁড়ে দেওয়া ২১১ রানের টার্গেট নিয়ে ব্যাটিংয়ে নেমে ভারনন ক্রিকেট ক্লাব ২০ ওভারের খেলায় ১২ ওভারেই ২১৬ করে রেকর্ড করেছিলো।রবিবার দ্বিতীয় ওভারের খেলার মধ্যমাংশে হঠাৎ হাল্কা বৃষ্টিপাত শুরু হয়। এ সময় দর্শকরা বিব্রত হলেও আম্পায়ার স্পেস ইন্জিনিয়ার আমিরুজ্জামান টুটুলের অনড় সিদ্ধান্তে শেষ পর্যন্ত খেলা চলমান রাখা হয়।  খেলায় ভারনন ক্রিকেট ক্লাবের পক্ষে সর্বোচ্চ ২২৪ রান করেন উসমান চৌধুরী, সর্বোচ্চ ১৪টি উইকেট গ্রহণকারী বাসিত আলী ও সর্বোচ্চ ২৭টি ছক্কা মারেন আদিল সারদার। ম্যান অব দ্য ম্যাচ নির্বাচিতি হয় শোয়েব শেখ, তিনি একাই ১৯৪ রান করেন, এরমধ্যে ৩টা ফিফটি, ১৬টা ছক্কা, ৮টা চার এবং ৫ উইকেট, ২টা ক্যাচ, স্ট্রাইক রেট ১৪৭.০৯ এবং বোলিং এভারেজ ১৮.৬ প্রতি উইকেটে। তার ওভারঅল রাংকিং ৮০৮।টুর্নামেন্টের শুরু থেকে ফাইনাল পর্যন্ত যারা ম্যান অব দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হয়েছে, তারা হলো- শোয়েব শেখ-ডাউনটাইন স্ট্রাইকার্স, উসমান মুরিদ (২বার)-ভারনন ক্রিকেট ক্লাব, আমান চতুর্বেদী-ডাউনটাইন স্ট্রাইকার্স, জিসান আলী-ওয়েস্টারন মাস ক্রিকেট ক্লাব, রুয়ান ফারমান্দো-কানেকটিকাট সুপার কিং, রিচার্ড স্যাম-কানেকটিকাট সুপার কিং, ফসি উদ্দিন-ওয়েস্টারন মাস ক্রিকেট ক্লাব ও হায়দার ইমরান-ভারনন ক্রিকেট ক্লাব। খেলায় আম্পায়ার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ইন্জিনিয়ার আমিরুজ্জামান টুটুল ও ইমরান আলী এবং স্কোরার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন যথাক্রমে-অলিউর রহমান, শরিফুল আহসান হেলাল ও সোহেলুর রহমান স্বপন।বাংলাদেশি আমেরিকান ফ্রেন্ডস অ্যান্ড ফ্যামিলি অব কানেকটিকাটের ক্রিকেট অনুরাগী টুর্ণামেন্ট প্রযুক্তিক কমিটির সদস্যবৃন্দ ও সমন্বয়কারী ক্রিকেটপ্রেমী মোল্লা বাহাউদ্দিন পিয়াল, হারুন আহমেদ, সভাপতি শাদ চৌধুরী বাবু ও ইঞ্জিনিয়ার আমিরুজ্জামান টুটুলের প্রচেষ্টায় প্রথমবারের মতো নিউ ইংল্যান্ড টি-টোয়েন্টি গোল্ডকাপ ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট নামে এ খেলা চালু করা হয়। আগামীতেও এর ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে বলে আশা করছেন আয়োজকবৃন্দ। দর্শক গ্যালারির পাশে খেলোয়াড়, দর্শকদ ও অতিথিদের জন্য দিনব্যাপী চিকেন বারবিকিউ-এ মধ্যাহ্ন ভোজের আপ্যায়ন।খেলা শেষে চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ দলের মধ্যে পুরুস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ম্যানচেস্টার সিটি মেয়র জো মোরান এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গোল্ড স্পন্সর ডা. আমান ইউ সাইদ, যৌথ গোল্ড স্পন্সর (বিধি বহির্ভুত) ড. তামিম আহমেদ ও আশফাকুল তরফদার।আম্পায়ার ইন্জিনিয়ার আমিরুজ্জামান টুটুল ও বাংলাদেশি আমেরিকান ফ্রেন্ডস অ্যান্ড ফ্যামিলি অব কানেকটিকাট-এর সদস্য আয়েশা দেওয়ান লিপির যৌথ সঞ্চালনায় পুরুস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন ম্যানচেস্টার সিটি মেয়র জো মোরান, ভারনন ক্রিকেট ক্লাবের ক্যাপ্টেন উসমান মুরিদ, এবং কানেকটিকাট সুপার কিংস-এর রুয়ান ফারনান্দো।আয়োজকবৃন্দের পক্ষে উপস্থাপিকা আয়েশা দেওয়ান লিপি মেয়র জো মোরানের কাছে এশিয়ান কমিউনিটির জন্য স্থায়ীভাবে ম্যানচেস্টারের রবার্টসন ইলেমেন্টারি স্কুলের মাঠটি বরাদ্দ ও ইঞ্জিনিয়ার আমিরুজ্জামান টুটুল মাঠে বৈদ্যুতিক আলোর ব্যবস্থার আহবান জানালে মেয়র জো মোরান জবাবে বলেন আগামী ২ নভেম্বর স্থানীয় নির্বাচন। তিনি পুনঃরায় নির্বাচিত হলে এ বিষয়গুলো সমাধানের চেষ্টা করবেন। শেষে চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ দলের প্রধানদের মাঝে পুরুষ্কার তুলে ম্যানচেস্টার সিটি মেয়র।এছাড়াও অন্যান্য খেলোয়াড়দের হাতে পুরুষ্কারের অর্থের চেক ও ট্রফি তুলে দেন বাংলাদেশি আমেরিকান ফ্রেন্ডস অ্যান্ড ফ্যামিলি অব কানেকটিকাটের সদস্যবৃন্দ। এরা হলেন যথাক্রমে- সাদ চৌধুরী বাবু, হারুন আহমেদ, বাহাউদ্দিন পিয়াল, চৌধুরী হায়দার তারেক, শরিফুল আহসান হেলাল, কবির আখন্দ, শাহীন আহমেদ, জাহেদ চৌধুরী লিটন, মামুন সরকার, সাদেক নজরুল, ডা. আমান ইউ সাইদ, ড. তামিম আহমেদ, মাসুদুর রহমান অপু, আশফাকুল তরফদার, মশিউর রহমান কামাল, গোলাম আহমেদ, আয়েশা দেওয়ান লিপি ও তারেক প্রমুখ।

Share This Post