ফ্রাঙ্কফুর্ট আন্তর্জাতিক বইমেলায় বাংলাদেশ স্টলের উদ্বোধন করলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

ফ্রাঙ্কফুর্ট আন্তর্জাতিক বইমেলায় বাংলাদেশ স্টলের উদ্বোধন করলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

পৃথিবীর সবচেয়ে প্রাচীন বইমেলার জন্য বিখ্যাত জার্মানির ফ্রাঙ্কফুর্ট শহরে শুরু হওয়া ৭৩তম আন্তর্জাতিক বইমেলায় আজ বাংলাদেশ স্টলের উদ্বোধন করলেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এমপি। 
স্থানীয় সময় বিকেল ৪:০০টায় বাংলাদেশ স্টলের উদ্বোধনকালে প্রতিমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ‘মুজিববর্ষ’ এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুচিন্তিত নির্দেশনা মোতাবেক ফ্রাঙ্কফুর্ট আন্তর্জাতিক বইমেলায় বাংলাদেশের অংশগ্রহণ অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ ও গর্বের বিষয়। করোনা পরিস্থিতিতে গত বছর এ মেলা অনুষ্ঠিত হয়নি। এবছর মুজিববর্ষের সমাপ্তিলগ্নে বাংলাদেশের অংশগ্রহণ সময়োপযোগী ও সফল হয়েছে। বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করতে এই অংশগ্রহণ বিশেষ ভূমিকা রাখবে মর্মে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দীর্ঘ সংগ্রাম ও ত্যাগ স্বীকারের কথা স্মরণ করে কে এম খালিদ বলেন, লাখো শহিদের আত্মত্যাগের মাধ্যমে স্বাধীন বাংলাদেশ পেয়েছি বলেই আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশ নিজস্ব স্বকীয়তা নিয়ে অংশগ্রহণ করতে পারছে।
ফ্রাঙ্কফুর্ট আন্তর্জাতিক বইমেলায় সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের নেতৃত্বে জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্ৰ বাংলাদেশের ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতি, মহান মুক্তিযুদ্ধ, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্ম, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লেখা বইসহ বাংলাদেশের খ্যাতিমান লেখকদের লেখা চার শতাধিক নির্বাচিত বই নিয়ে অংশগ্রহণ করছে।
করোনা মহামারি উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সীমিত পরিসরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট কৃষি বিজ্ঞানী বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের পরিচালক ড. সোহেলা আক্তার, একুশে পদকপ্রাপ্ত জার্মান প্রবাসী কবি নাজমুন নেসা পিয়ারি, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব অসীম কুমার দে, জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রের পরিচালক মিনার মনসুর, জার্মানিস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মাশিয়াল কাউন্সিলর সাইফুল ইসলাম, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর জন্মশতবার্ষিকী জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান মিডিয়া কর্মকর্তা নাসরীন জাহান লিপি, প্রতিমন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব ডা. মীর আনোয়ার হোসেনসহ প্রবাসী বাংলাদেশি সাংবাদিক, সাংস্কৃতিক ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ববৃন্দ।
পরে প্রতিমন্ত্রী জার্মান বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সহযোগিতায় সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেন। 

Share This Post