ফরিদপুরে আঃ লীগ নেতারা মনোনয় প্রত্যাশায় এখন ঢাকা

ফরিদপুরে আঃ লীগ নেতারা মনোনয় প্রত্যাশায় এখন ঢাকা

নাজিম বকাউল (ফরিদপুর) : ফরিদপুরে আঃলীগের নেতা কর্মীরা পক্ষ বিপক্ষ নেতা কর্মীরা আগামী ১১ই নভেম্বরের ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্ধী মনোনয়ন প্রত্যাশায় ঢাকা অবস্থান করছে। প্রায় দুই শাতধিক নেতা কর্মী ও অভিভাবকরা ঢাকায় আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় অফিস থেকে মনোনয় পত্র সংগ্রহ করেছে। ফরিদপুর জেলার নগরকান্দা ও সালথাসহ দুই উপজেলার ১৭টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ১৭টি ইউনিয়নের প্রায় শতাধিক নেতারা নির্বাচন করার জন্য দলীয়বাবে আবেদন করেছে উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটির নিকট। উপজেলা আওয়ামী লীগ কমিটি ঐ আবেদনের কপি ফরিদপুর জেলা কমিটির নিকট সুপারিশ করে প্রেরণ করেছেন। ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগ কমিটি কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ কমিটির নিকট প্রেরণ করেছেন। কেন্দ্রীয় কমিটি চূড়ান্ত মনোনয়ন দিবেন। মনোনয়ন প্রতাশায় চেয়ারম্যান প্রার্থীরা ২/৩ দিন ধরে ঢাকা লবিং চালাচ্ছো।
এদিকে বর্তমান চেয়ারম্যানদের জনপ্রিয়তায় রয়েছেন ৩ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, তারা হচ্ছেন- ফুলসূতীর ইউ.পি চেয়ারম্যান আরিফ হোসেন, চরযশোরদি ইউ.পি চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান প্রতীক ও আটঘর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম খান সোহাগ। উক্ত তিন ইউনিয়নের সাধারণ জনগণ ও আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতাকর্মীরা পুনরায় উক্ত ৩ জনকে চেয়ারম্যান হিসেবে দেখাতে চায় এবং দল যেন এদেরকে মনোনয়ন দেয় এই প্রত্যাশা করেছেন।
বিশ্বস্থ সূত্রে জানা যায়, প্রায় শতাধিক প্রার্থীরা যে যেভাবে পারছে কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে মনোনয়ন পাবার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা চালাচ্ছে। তবে ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ পর্যায়ের নেতারা বলেন, কেন্দ্রীয় কমিটি যাচাই বাছাই করে প্রকৃত আওয়ামী লীগের ত্যাগীনেতাদের মনোনয়ন দিবে এটাই প্রত্যাশা করি। কোন অবস্থাতেই যেন হাইব্রিট অনুপ্রবেশকারীরা যেন সুযোগ না পায়।
গট্টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী ও আওয়ামী লীগ নেতা খোরশেদ খান জানান, কেন্দ্রীয় কমিটি আমরা যারা প্রকৃতভাবে আওয়ামীলীগ করি তাদেরকেই মনোনয়ন দিবে বলে আমার আত্মবিশ্বাস।

Share This Post