নবাবগঞ্জে চার বছরের শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা

নবাবগঞ্জে চার বছরের শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা

নাজনীন সিকদার (দোহার-নবাবগঞ্জ ) :
ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলার গালিমপুর ইউনিয়নের খান হাটি এলাকায় চার বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত ২৯ সেপ্টেম্বর বুধবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। এবিষয়ে নবাবগঞ্জ থানায় শিশুটির মা মারিয়া রুম্পা বাদি হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। এদিকে রোববার বিকেলে অভিযুক্ত হারুনের বাড়িতে গেলে কাইকেই পাওয়া যায়নি। মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ২৯ সেপ্টেম্বর দুপুরে বাড়ির পাশে মো.হারুনের দোকানে গেলে চকলেট খাওয়ানোর কথা বলে শিশুটিকে দোকানের ভিতরে ডেকে নিয়ে তার স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেয় এবং ধর্ষণের চেষ্টা করে লম্পট হারুন। এসময় শিশুটি চিৎকার করে কান্না করলে দোকান থেকে বের করে দেয়। পরে বাড়িতে এসে শিশুটি তার মায়ের কাছে জানায় হারুন তাকে চকলেটের কথা বলে স্পর্শকাতর স্থানে আঘাত করেছে। এসময় শিশুটি পেটে ব্যাথা অনুভব করে কান্না করতে থাকে। পরে তার মা তাকে সরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে শিশুটির গোপনাঙ্গে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়। ঘটনার একদিন পর নবাবগঞ্জ থানায় শিশুটির মা বাদি হয়ে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামরার পর অভিযুক্ত হারুন বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়।  এদিকে রোববার বিকেলে অভিযুক্ত হারুনের বাড়িতে গেলে কাইকেই পাওয়া যায়নি। স্থানীয়রা জানান, হারুনের বাড়ি গালিমপুরের রামনাথপুর এলাকায়। বর্তমানে গালিমপুরের হাটি বাড়ি এলাকায় ভাড়া থাকেন। এসময় তার বিরুদ্ধে মাদক বিক্রিসহ আরও নানা অভিযোগের কথা তুলে ধরেন স্থানীয়রা। এমন ঘটনায় তাকে আইনের আওতায় এনে বিচারের দাবি জানান তারা।ভুক্তভোগী শিশুর মা মারিয়া রুম্পা জানান, আমার মেয়ের সাথে এমন ঘটনা কখনো মেনে নেয়া যায়না আমি হারুনের কঠিন বিচার চাই,যাতে অন্য কারো সাথে আর এমন ঘটনা না ঘটে। এসময় একই দাবি জানান পরিবারের অন্য সদস্যরা।এবিষয়ে নবাবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম শেখ জানান, শিশু ধর্ষণের চেষ্টায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। বর্তমানে আসামি পলাতক রয়েছে। তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

Share This Post