দোহারে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্য বিবাহ বন্ধ, জেল ও জরিমানা

দোহারে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্য বিবাহ বন্ধ, জেল ও জরিমানা

 নাজনীন সিকদার (দোহার-নবাবগঞ্জ ) : 
ঢাকার দোহার উপজেলায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক শিক্ষার্থীর বাল্য বিবাহ বন্ধ করা হয়েছে। শুক্রবার রাতে  উপজেলার সুতারপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে ওই কিশোরীর বিবাহ বন্ধ করেন ইউএনও। বাল্য বিয়ের পিড়িতে বসতে যাওয়া ওই কিশোরীর বয়স ১৫। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বরিশাল জেলার বাসিন্দা মো.আরিফুর রহমান প্রতারণা করে দোহারসহ বিভিন্ন স্থানে চারটি বিয়ে করেন। একইভাবে স্থানীয় কাউকে না জানিয়ে নবম শ্রেণির ওই ছাত্রীকে বিয়ের প্রস্তুতি নিলে স্থানীয়রা প্রশাসনকে খবর দেয়। খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এএফএম ফিরোজ মাহমুদ। এসময় ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে বরকে ৬ মাসের কারাদ- এবং কনের পিতাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। এসময় সহায়তা করেন দোহার থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মোস্তফা কামাল। পরে উপস্থিত সকলকে বাল্য বিবাহের কুফল সম্পর্কে অবহিত করার সাথে সাথে বাল্য বিবাহের ঘটনা ঘটলে প্রশাসনকে অবহিত করার অনুরোধ করা হয়।  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এএফএম ফিরোজ মাহমুদ বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পেরে আমরা ওই কিশোরীর বিয়ে বন্ধ করেছি। বরকে ৬ মাসের কারাদ- ও কিশোরীর পিতাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ওই কিশোরী প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিবেন না এমন মুছলেকা দিয়েছেন ওই কিশোরীর পিতা। 

Share This Post