দুর্যোগ মোকাবেলায় সবাইকে সচেতন ও কার্যকর ভূমিকা রাখতে হবে- উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার

দুর্যোগ মোকাবেলায় সবাইকে সচেতন ও কার্যকর ভূমিকা রাখতে হবে- উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার

আলী আজীম (মোংলা,বাগেরহাট):

“মুজিব বর্ষের প্রতিশ্রুতি,জোরদার করি দুর্যোগ প্রস্তুতি” শ্লোগানকে সামনে রেখে মোংলায় আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস-২০২১ ও সিপিপি’র ৫০ বছর পূর্তি উদযাপন উপলক্ষে ভূমিকম্প ও অগ্নিকান্ড বিষয়ক মহড়া ও সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মোংলা উপজেলা প্রশাসন ( দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা শাখা)’র আয়োজনে ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর,দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রনালয়ের সহযোগীতায় এ মহড়া ও আলোচনাসভা করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার’র সভাপতিত্বে বুধবার (১৩ অক্টোবর) দুপুর ১২টায় উপজেলা অফিসার্স ক্লাবে আয়োজিত দুর্যোগ প্রশমন দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিধি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ,বন ও জলবায়ূ পরিবর্তণ মন্ত্রনালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার এমপি।

প্রধান অতিধির বক্তৃতায় উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার এমপি বলেন,বাংলাদেশকে দুর্যোগ সহনশীল রাষ্ট্র হিসাবে গড়ে তুলতে সরকার বহুমুখী উদ্যোগ নিয়েছে। দুর্যোগ সহনশীল দেশ গড়তে কার্যকর সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করতে হবে। বস্তুত, দুর্যোগঝুঁকি মোকাবিলায় ব্যাপক প্রস্তুতি না থাকলে শুধু জানমালের ক্ষতি নয়, দেশের সার্বিক উন্নয়নই ব্যাহত হতে পারে। তাই এ বিষয়ে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়ার বিকল্প নেই। বাংলাদেশ প্রাকৃতিক দুর্যোগপ্রবণ দেশ হওয়ায় প্রস্তুতির বিষয়টি আমাদের জন্য আরও গুরুত্বপূর্ণ। এটা ঠিক, প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলায় আমাদের সক্ষমতা বেড়েছে। বিশেষ করে উপকূলীয় এলাকায় ঘূর্ণিঝড়-জলোচ্ছ্বাসে প্রাণহানি কমিয়ে আনা সম্ভব হচ্ছে। তবে বন্যা ও নদীভাঙন মোকাবিলায় আমাদের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে আরও অনেক কিছু করণীয় রয়েছে। এ ক্ষেত্রে উপকূল ও বন্যাপ্রবণ এলাকায় দুর্যোগ সহনশীল টেকসই অবকাঠামো গড়ে তোলা জরুরি বলে মনে করি আমরা। বস্তুত দুর্যোগ মোকাবিলায় প্রয়োজন ব্যাপক প্রস্তুতি ও সতর্কতামূলক পদক্ষেপ। দুর্যোগে ক্ষয়ক্ষতি কমিয়ে আনতে এ দুটি কাজ সঠিকভাবে সম্পন্ন করার বিকল্প নেই। প্রাকৃতিক ও মনুষ্যসৃষ্ট বিভিন্ন ধরনের দুর্যোগ মোকাবেলায় জনসচেতনতা সৃষ্টির পাশাপাশি সবাইকে সচেতন ও কার্যকর ভূমিকা রাখার আহবান জানান তিনি।

অন্যান্যদের মধ্যে উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার,রামপাল-মোংলা সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আসিফ ইকবাল,মোংলা থানা অফিসার্স ইনচার্জ মোঃ মনিরুল ইসলাম,উপজোলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ মতিউর রহমান,মোংলা উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি পীযূষ কান্তি মজুমদার,মিঠাখালি ইউপি চেয়ারম্যান ইস্রাফিল হাওলাদারসহ উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, সিভিল ডিফেন্স এন্ড ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা, এনজিও প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি, ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যবৃন্দ,জনপ্রতিনিধি,সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের ব্যক্তিরা ও উপস্থিত ছিলেন। এর আগে উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার এমপি বিভিন্ন মহড়া প্রদর্শন করে।

পরে হিন্দু ধর্মালম্বীদের সর্ববৃহৎ উৎসব শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে মোংলা বটতলার কেন্দ্রীয় মন্দিরসহ বিভিন্ন মন্দির পরিদর্শন করেন উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার এমপি।

Share This Post