ঢাকায় মাটির নিচ দিয়ে বিদ্যুৎ লাইন টানার কাজ শুরু

ঢাকায় মাটির নিচ দিয়ে বিদ্যুৎ লাইন টানার কাজ শুরু

তারবিহীন শহর হিসেবে গড়ে তুলতে রাজধানী ঢাকায় প্রথমবারের মতো শুরু হলো মাটির নিচ দিয়ে (আন্ডার নেটওয়ার্ক) বৈদ্যুতিক তার সরবরাহের কাজ। নতুন বছরের প্রথমদিনে শনিবার (১ জানুয়ারি) দুপুরে এই কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়।
প্রকল্প অনুযায়ী, প্রথমে বঙ্গভবন থেকে জাহাঙ্গীর গেট পর্যন্ত ১৯ কিলোমিটার প্রধান সড়কের দুপাশ এবং গাবতলী থেকে আজিমপুর পর্যন্ত ১০ কিলোমিটার প্রধান সড়কের দুপাশে মাটির নিচ দিয়ে লাইন টানার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।ঢাকার বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানি ডিপিডিসির অর্থায়নে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সিএনটিআইসি এবং এসপিআইটিসি যৌথভাবে এই কাজ বাস্তবায়ন করছে।
ডিপিডিসি জানিয়েছে, মাটির নিচ দিয়ে (আন্ডার নেটওয়ার্কিং) তার টানার কাজ শুরুর প্রথম পর্যায়ে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের আঙিনার বিদ্যুৎ অফিস থেকে লাইন টানা শুরু হয়েছে। ওই উপকেন্দ্রে দুটি ১১ কেভি রিং মেইন ইউনিট (আরএমইউ) চালু করা হয়েছে।

ওই লাইনে ডিপিডিসির মনিপুরীপাড়া ৩৩/১১ কেভি উপকেন্দ্র থেকে ১১ কেভি মাটির নিচ দিয়ে সংযোগ করা হয়েছে। আন্ডার নেটওয়ার্ক টানা রাস্তার দুপাশে কিয়োস্ক ট্রান্সফরমার, রিং মেইন ইউনিট (আরএমও), লো টেনসন ডিস্ট্রিবিউশন বক্স (এলটিবি) স্থাপন করা হবে।
এদিকে, উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডিপিডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী বিকাশ দেওয়ান।

এসময় তিনি বলেন, অধিকতর নির্ভরযোগ্য ও নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সুবিধা প্রদানের লক্ষ্যে ‘পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন সিস্টেম ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট আন্ডার ডিপিডিসি অ্যারিয়া’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় বঙ্গভবন থেকে জাহাঙ্গীর গেট এবং গাবতলী থেকে আজিমপুর পর্যন্ত বিদ্যমান ওভারহেড বিদ্যুৎ বিতরণ লাইনকে আন্ডার গ্রাউন্ডে লাইনে রূপান্তর করা হবে।
তিনি বলেন, ‘আমরা কাজ শুরু করেছি। করেনাসহ বেশকিছু কারণে আমাদের কিছুটা দেরি হয়েছে। নয়তো আমরা এই কাজে আরও আগেই হাত দিতাম।’
ডিপিডিসি বলছে, জাহাঙ্গীর গেট থেকে ফার্মগেট পর্যন্ত ২২টি আরএমইউ, ১৯টি এলটিবি এবং চারটি কিয়োস্ক ট্রান্সফরমার স্থাপন করা হবে। এই কাজ বাস্তবায়নে ব্যয় হচ্ছে প্রায় ৩০০ কোটি টাকা। কাজটি চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সিএনটিআইসি এবং এসপিআইটিসি যৌথভাবে বাস্তবায়ন করছে।
তারবিহীন শহর বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে ২০২০ সালের শুরুর দিকে সিলেটের দরগাহ গেট এলাকায় আন্ডারগ্রাউন্ড লাইনে বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হয়। এবার ঢাকায়ও একই পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে বিদ্যুৎ বিভাগ।

Share This Post