জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কর্মসূচি

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কর্মসূচি

আগামী ১৫ আগস্ট ২০২১ খ্রি. তারিখ স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস ২০২১ যথাযথ মর্যাদা ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে পালনের লক্ষ্যে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় ও এর অধীনস্থ দপ্তর-সংস্থাসমূহ ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

দিবসটি পালন উপলক্ষে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সকল দপ্তর/সংস্থার ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হবে। ধানমণ্ডির ৩২ নম্বর সড়কে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ হতে প্রদত্ত নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ ছাড়া মন্ত্রণালয় এবং দপ্তর/সংস্থার দাপ্তরিক ভবনসমূহে, প্রধান কার্যালয় ও আঞ্চলিক কার্যালয়ে ড্রপডাউন ব্যানার স্থাপন করা হবে এবং শহিদদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে কোরআনখানি ও দোয়া মাহফিল আয়োজন করা হবে।

জাতীয় শোক দিবসকে কেন্দ্র করে দেশব্যাপী অনলাইনভিত্তিক সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা আয়োজনের জন্য সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় হতে বিভাগীয় পর্যায়ে ১ লাখ টাকা, জেলা পর্যায়ে ৫০ হাজার টাকা এবং উপজেলা পর্যায়ে ২৫ হাজার টাকা বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে। তাছাড়া প্রতি উপজেলা হতে ১০ জন করে অসচ্ছল সংস্কৃতিসেবীকে ২,৫০০ টাকা হারে আর্থিক সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে প্রতিটি উপজেলায় আরো অতিরিক্ত ২৫ হাজার টাকা করে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা আয়োজনের রূপরেখা সকল বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারগণের নিকট প্রেরণ করা হয়েছে।

শোক দিবস উপলক্ষে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে ও বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির সহযোগিতায় ‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ’ শীর্ষক অনলাইন চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে। প্রতিযোগিতায় আবেদনের শেষ তারিখ ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১। এ বিষয়ে www.moca.gov.bd ও www.shilpakala.gov.bd ওয়েবসাইট হতে বিস্তারিত জানা যাবে।

দিবসটি উপলক্ষে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় বাংলা একাডেমির সহযোগিতায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে আগামী ১৭ আগস্ট ২০২১ খ্রি. তারিখ বা সুবিধাজনক সময়ে আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজন করবে। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এমপি। সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ আবুল মনসুর এর সভাপতিত্বে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী। প্রবন্ধের ওপর আলোচনা করবেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা।

এছাড়া দিবসের অন্যান্য উল্লেখযোগ্য কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে জাতির পিতার স্মরণে এবং দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি, বাংলা একাডেমি, গণগ্রন্থাগার অধিদপ্তর, কবি নজরুল ইনস্টিটিউট, প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর, আরকাইভস ও গ্রন্থাগার অধিদপ্তর, কপিরাইট অফিস এবং জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্র কর্তৃক অনলাইনে আলোচনা সভা ও সেমিনার আয়োজন; স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি, গণগ্রন্থাগার অধিদপ্তর, বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন, আরকাইভস ও গ্রন্থাগার অধিদপ্তর কর্তৃক অনলাইনভিত্তিক রচনা/প্রবন্ধ, কুইজ ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা আয়োজন; বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি, প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর ও জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্র কর্তৃক বঙ্গবন্ধু রচিত গ্রন্থসমূহের ওপর অনলাইনভিত্তিক পাঠ পর্যালোচনা/পাঠচক্র অনুষ্ঠান; বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি, কবি নজরুল ইনস্টিটিউট এবং আরকাইভস ও গ্রন্থাগার অধিদপ্তর কর্তৃক ভার্চুয়াল/ডিজিটাল আলোকচিত্র প্রদর্শনী; বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর কর্তৃক বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি নিদর্শন নিয়ে ভার্চুয়াল প্রদর্শনী; বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি-সহ সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বিভিন্ন ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউট/ একাডেমি/কেন্দ্রসমূহ কর্তৃক অনলাইনে বিভিন্ন সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা আয়োজন, প্রভৃতি।

Share This Post