কঠোর লকডাউনে কর্মহীন অসহায় হতদরিদ্র শ্রমজীবী মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহবান শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের সভাপতির

কঠোর লকডাউনে কর্মহীন অসহায় হতদরিদ্র শ্রমজীবী মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহবান শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের সভাপতির

লকডাউনে কর্মহীন ক্ষুধার্ত শ্রমজীবীদের সাহার্যার্থে সরকার ও সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসতে হবে- আ ন ম শামসুল ইসলাম
বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাবেক এমপি আ ন ম শামসুল ইসলাম আজ এক বিবৃতিতে বলেছেন, চলমান কঠোর লকডাউনে রিকশা চালক, গাড়ি চালক, দিনমজুর, কৃষিশ্রমিক, দোকান কর্মচারী, হকার্স ও খেটে খাওয়া কর্মজীবীরা এখন ঘরবন্দি। এই সকল শ্রমজীবীদের কোন বিকল্প আয়ের উৎস নেই। পরিবার-পরিজন নিয়ে তাদের জীবন ভীষণ কষ্টে অতিবাহিত হচ্ছে। তাদের ঘরে নেই পর্যাপ্ত খাদ্য সামগ্রী। ফলে কর্মহারিয়ে আজ তারা ক্ষুধার্ত হয়ে পড়ছে। এই সংকটে সবচেয়ে বেশী কষ্টে আছে যারা দিন আনে দিন খায় এমন শ্রমিকরা।
শামসুল ইসলাম বলেন, গত বছর লকডাউনে সরকারি-বেসরকারি ও বিভিন্ন ব্যক্তি উদ্যোগে শ্রমজীবী মানুষদের সহযোগিতা করলেও এবার তেমন কোন উদ্যোগ দেখা যাচ্ছে না। এবারের লকডাউনে তাই কর্মহীন ক্ষুধার্ত শ্রমজীবীদের অবর্ণনীয় কষ্ট ভোগ করতে হচ্ছে। এই মহাসংকট থেকে কর্মহীন ক্ষুধার্ত শ্রমজীবীদের সাহার্যার্থে সরকারের পাশাপাশি সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসতে হবে। এর পাশাপাশি আমি বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের প্রতিটি জেলা-মহানগরী, উপজেলা ও থানা, ট্রেড ইউনিয়ন সমূহের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের শ্রমজীবী মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য উদাত্ত আহবান জানাচ্ছি।
জনাব ইসলাম আরো বলেন, করোনা মহামারীতে আক্রান্ত প্রতিটি শ্রমজীবী মানুষের সুচিকিৎসার জন্য সরকারের তরফ থেকে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। বিনা চিকিৎসায় একজন শ্রমজীবী মানুষের মৃত্যও কোনভাবে কাম্য নয়। শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের প্রতিটি নেতাকর্মীকে করোনা আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসা সেবা দেওয়ার জন্য এগিয়ে আসতে হবে। ঔষুধপত্রের ব্যবস্থা করাসহ চিকিৎসার সার্বিক তদারকি করতে হবে। করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যবরণকারীদের দাফনের সুষ্ঠু ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।
জনাব শামসুল ইসলাম বলেন, অত্যন্ত বেদনার সাথে আমরা পরিলক্ষ করেছি, জাতির এই দুঃসময়েও একশ্রেণীর অসাধু ব্যবসায়ী জনসাধারণের নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী তথা চাল, ডাল ও তেলসহ বিভিন্ন জিনিসপত্রের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। কর্মহীন আয় শূন্য মানুষদের পক্ষে যা ভীষণ পীড়াদায়ক। অবিলম্বে এই সকল অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করে সকল খাদ্য ও চিকিৎসা সামগ্রীর ক্রয় মূল্য জনসাধারণের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রাখার জন্য সরকারের প্রতি বিশেষ অনুরোধ করছি।
পরিশেষে জনাব শামসুল ইসলাম বলেন, জাতি একটি কঠিন ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। এই অবস্থা উত্তরণের জন্য আমাদের সকলকে আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের দরবারে ফরিয়াদ করতে হবে। যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে করোনা মহামারীতে থেকে উত্তরণের জন্য চেষ্টা অব্যাহত রাখতে হবে। ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলকে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে জাতিয় ঐক্য গড়ার মাধ্যমে অসহায় কর্মহীন শ্রমজীবী মানুষদের পাশে দাঁড়াতে হবে।

Share This Post