আগামীর বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিতে প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে: প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ছাত্র মৈত্রীর নেতৃবৃন্দ

আগামীর বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিতে প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে: প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ছাত্র মৈত্রীর নেতৃবৃন্দ

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রীর ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আজ (সোমবার) দুপুর আড়াইটার দিকে বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনের (টিএসসিসি) করিডোরে শাখা ছাত্র মৈত্রীর সহ-সভাপতি আখতার হোসেন আজাদের সভাপতিত্বে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়।
শাখা সাংগঠনিক সম্পাদক মুজাহিদুল ইসলাম মোরশেদের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, ছাত্র মৈত্রীর কেন্দ্রীয় রাজনীতি ও শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আরিফুজ্জামান। তিনি বলেন, প্রতিষ্ঠার পর থেকে কৃষক-শ্রমিক, সাধারণ মানুষ এবং শিক্ষার্থীদের অধিকার আদায়ে বিভিন্ন আন্দোলন করে যাচ্ছে ছাত্র মৈত্রী। মেহনতী শ্রমজীবীদের অর্থ দিয়ে জনসাধারণের আয়করের টাকায় বিশ্ববিদ্যালয় চলে। অথচ বর্তমানে স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ভর্তি ফি দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। শিক্ষাবাণিজ্যের ফলে জনগণ তাদের মৌলিক অধিকার- শিক্ষা অর্জনে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।
শাখা ছাত্র মৈত্রীর সাধারণ সম্পাদক মু’তাসিম বিল্লাহ পাপ্পু বলেন, আজ দেশ খাতা-কলমে সমৃদ্ধির পথে এগুলেও মানবতার প্রকৃত মুক্তি আনা এখনো সম্ভব হয়নি। দেশে এখন যেন দুর্নীতির মহোৎসব চলছে!
আলোচনা সভায় আখতার হোসেন আজাদ বলেন, বর্তমান ঘুণে ধরা ছাত্ররাজনীতির মডেল হিসেবে ছাত্র মৈত্রী সকলের কাছে নিজেদের প্রতিষ্ঠা করতে পেরেছে। ক্যাম্পাসে যখন অন্যান্য ছাত্রসংগঠনগুলো সন্ত্রাস, হলে সিট দখল, নৈরাজ্য, টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজির পথ বেছে নিয়েছে; ছাত্র মৈত্রী তখন পোস্টার ছেঁড়া ও ব্যানার পোড়ানোর রাজনীতির বদলে সাধারণ শিক্ষার্থীদের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে নেতৃত্ব প্রদান করে ভূয়সী প্রশংসা কুঁড়াতে সক্ষম হয়েছে। আগামীর বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেবার জন্য আমাদের এখনই প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে।
এসময় আরও বক্তব্য দেন অর্থ সম্পাদক রিপন রায়, দপ্তর সম্পাদক আশিকুর রহমান, পবিত্র রয় পার্থ, অজয় কুমার, মাহমুদুল হাসান, আবির প্রমুখ।

Share This Post